যমুনায় পানি বৃদ্ধি,তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে সিরাজগঞ্জর শাহজাদপুরে যমুনার ভাঙন।… – newsline71bd
শিরোনাম
নাটোরের সিংড়ায় পুজা মন্ডপ পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী পলক ও ডিআইজি দুর্নীতির বিরুদ্ধে রিপোর্ট সরকারকে ব্যবস্থা নিতে সহায়তা করে: প্রধানমন্ত্রী সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে মাস্ক ছাড়া কোনো সার্ভিস নয়ঃ মন্ত্রিপরিষদ সচিব!! সাংবাদিক পরিবারের আমিও একজন সদস্য: প্রধানমন্ত্রী!! ২০২১ সালের সরকারি ছুটির খসড়া চূড়ান্ত শারদীয় দূর্গোৎসব এর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাংবাদিক রাজু আহমেদ বসানো হলো পদ্মা সেতুর ৩৪তম স্প্যান নাটোরের সিংড়ায় হিন্দু সমপ্রদায়কে শারদীয় দূর্গোৎসব এর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এ্যাডঃ মোফাজ্জল হোসেন মোফা সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টারের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতির শোক প্রকাশ সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্টের জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন
add

যমুনায় পানি বৃদ্ধি,তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে সিরাজগঞ্জর শাহজাদপুরে যমুনার ভাঙন।…

রিপোটারের নাম / ৪৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৬ জুন, ২০২০
add


মারুফ আল আমিন,

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে যমুনা নদীতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

সেই সাথে তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে নদী ভাঙ্গন। বিলীণ হয়ে যাচ্ছে বিস্তীর্ণ জনপদ ও ফসলি জমি। আতঙ্ক উৎকণ্ঠায় রয়েছে তীরের বাসিন্দারা।

যমুনা নদীর ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। ভাঙন কবলিত গ্রামগুলো হল, উপজেলার কৈজুরি ইউনিয়নের ভাটপাড়া নতুন বাজার, গুদিবাড়ি, জগতলা, ঠুটিয়া ও হাটপাচিল, জালালপুর ইউনিয়নের পাকুরতলা, ভেকা, বাঐখোলা, খুকনি ইউনিয়নের আরকান্দি ও ব্রাহ্মণগ্রাম, সোনাতুনি ইউনিয়নের ধীতপুর, শ্রীপুর, মাকড়া, সোনাতুনি, বড় চানতারা, বারপাখিয়া ও বানতিয়ার।

ওই সব গ্রামের অন্তত দুই শতাধিক ঘরবাড়ি, দোকানপাট, মসজিদ, ৫০০ বিঘা আবাদি জমি ও দুইটি প্রাথমিক বিদ্যালয় নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ভাঙন আতংক বিরাজ মধ্যে করছে।

এলাকাবাসী জানায়,বর্ষা মৌসুম শুরুর সঙ্গে সঙ্গে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি শুরু হয়েছে। আর এই পানি বৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ভাঙন শুরু হয়েছে। গত এক সপ্তাহে ভাটপাড়া এলাকার যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণ বাঁধের পাঁচটি স্থানের অন্তত এক হাজার ফুট এলাকার সিসি ব্লক ও জিও টেক্সপেপার নদীগর্ভে ধসে গেছে।

ভাঙন কবলিত এলাকাবাসীর অভিযোগ, সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড গত বছরের ভাঙন এলাকা মেরামত না করায় এবং এ বছর এখনো ভাঙন রোধে কোনো কার্যকর ব্যবস্থা না নেয়ায় এই ভাঙন আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে। ফলে বাড়িঘর ভিটেমাটি হারিয়ে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে পড়ছে। ভাঙন আতঙ্কে এখানকার মানুষেরা প্রতিদিন নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন এখন মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

যমুনার ভাঙনে ভিটেমাটি ও আবাদি জমি হারিয়ে পগলপ্রায় আলমাস হোসেন জানান, ভাঙনের চিন্তায় রাতে ঘুমাতে পারি না। আটবার বাড়ি ভেঙেছে। প্রতিবারই সব কিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছি। আবারও যদি বাড়িঘর যমুনার পেটে চলে যায়, তবে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারব না।

এ ব্যাপারে কৈজুরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, জালালপুর ইউনিয়নের সুলতান মাহমুদ ও সোনাতুনি ইউনিয়নের লুৎফর রহমান জানান, নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যহত থাকায় স্রোত তীব্র আকার ধারণ করেছে। ফলে শাহজাদপুরের যমুনা নদীর তীর এলাকায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। এ ভাঙনের কবল থেকে রেহাই পাচ্ছে না তীর সংরক্ষণ বাঁধ।
এলাকাবাসী নিজেদের টাকায় বাঁশ-চাটাই কিনে ভাঙনরোধের চেষ্টা করছেন। কিন্তু তাতে কোনো কাজ হচ্ছে না। এ ভাঙন রোধে অতিদ্রুত পানি উন্নয়ন বোর্ডকে ব্যবস্থা নিতে তারা অনুরোধ করেন।

এলাকাবাসী আরও জানায়, ভাঙন রোধে ছয় বছর আগে ১১০ কোটি টাকা ব্যয়ে শাহজাদপুরের কৈজুরী থেকে বেনুটিয়া পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার এলাকায় তীরসংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণ করা হয়। চার বছর ধরে এ বাঁধে কোনো সংস্কার কাজ না করায় বাঁধের বিভিন্ন স্থান দুর্বল হয়ে পড়েছে। ওই সব দুর্বল স্থানে লিকেজ সৃষ্টি হওয়ায় সেখানে নতুন করে ধস দেখা দিয়েছে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, টাকার সংকুলান না থাকায় আপাতত বাঁধ রক্ষায় কাজ করা যাচ্ছে না। তবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি ভাঙন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে।#


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৩৯৮,৮১৫
সুস্থ
৩১৫,১০৭
মৃত্যু
৫,৮০৩
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪২,৯৮৩,০৮৬
সুস্থ
২৮,৯৫৩,৯২৬
মৃত্যু
১,১৫৩,৫৪৭
add